Books

বিদেশে উচ্চশিক্ষা Pdf Download (All)

বিদেশে উচ্চশিক্ষা –  bideshe-ucchoshikkha pdf Download

বিদেশে পড়তে যাওয়ার আগ্রহ কম-বেশি সবারই আছে । সঠিক তথ্য না জানলে বিভ্রান্তি বাড়ে । না বুঝে অনেকে হাল ছেড়ে দেয় । তবে জানা থাকলে বুঝেশেুনে পা বাড়ানো যায় । বিদেশে পড়াশোনার ’সিদ্ধান্ত’ নেওয়া থেকে শুরু করে ভর্তির আগে বা পরে যতো ধাপ , প্রস্তুতি বা করণীয় আছে-এর সবই আছে বইটিতে ।

  • আমেরিকায় উচ্চশিক্ষা রাগিব হাসান pdf
  • আমেরিকায় উচ্চশিক্ষা ও গবেষণা pdf
  • আমেরিকায় উচ্চশিক্ষা pdf download
  • আমেরিকায় উচ্চশিক্ষা ও গবেষণা pdf
  • নিজের ভাষায় মার্কেটিং pdf
  • নন মার্কেটারদের জন্য মার্কেটিং pdf
  • আমেরিকায় আন্ডারগ্রাজুয়েট খরচ
  • আমেরিকায় ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন কত
  • আমেরিকায় উচ্চশিক্ষা খরচ
  • আমেরিকার বিশ্ববিদ্যালয় সমূহ
  • বিদেশে উচ্চশিক্ষা ও ভিসা তথ্য

পিএইচ.ডি করতে চাও?  অনেক ছাত্রছাত্রী আমাকে বলে__-‘আমি পিএইচ.ডি করতে চাই।” আমি তখন তাদের প্রশ্ন করি__পিএইচ.ডি কেন করবে? গবেষক হতে চাও, নাকি প্রবাসে  যেতে চাও?” আমার এ প্রশ্নের উত্তর যে যেভা হচ্ছে__“গবেষক হওয়াটা আসল উদ্দেশ্য  উদ্দেশ্য! বেই দিক, অনেকের মনের কথা নয়, বিদেশে আসাটাই আসল  বেশিরভাগ ছাত্রছাত্রী বিদেশে আসার জন্য বা প্রবাসে স্থায়ী হবার জন্য বলে, “আমি পিএইচ.ডি করতে চাই।” মনে রাখতে হবে, প্রবাসে আসার জন্য বা স্থায়ী  হবার জন্য পিএইচ.ডি করা     টা জরুরি নয়। প্রবাসে থাকার অনেক উপায় আছে।

পিএইচ.ডি ডিগ্রি সবার জন্য নয়। যদি পিএইচ.ডি করতে চাও, তবে তোমাকে  ঞে     [গেই ঠিক করতে হবে পিএইচ.ডি ডিগ্রি অর্জন করার পর তুমি কী করবে? আমার পরিচিত অনেকেই আছেন যারা পিএইচ.ডি ডিগ্রি নিয়ে বিপদে আছেন। তুমি যদি একাডেমিশিয়ান হতে চাও_কিংবা বিদেশের ভালো কোম্পানিতে  গবেষক হিসেবে চাকরি করতে চাও;-তবেই পিএইচ.ডি কর। তা না হলে,  এখানে তারা আনন্দ  অনেকে দেশ থেকে     পিএইচ.ডি ডিগ্রি তোমাকে শান্তি দেকে, না। গবেষকরা গবেষণায় আসে, কারণ  পায়। তুমি কি ল্যাবের কাজে আনন্দ পাও? শুরু করার আগে     চিন্তা করো, গবেষণা করা খুব সহজ নয়!  যে ধারণা নিয়ে প্রবাসের পিএইচ.  ডি জীবনে আসে, বাস্তবতা        ভিন্ন। পিএইচ.ডি মানে ডক্টর অফ ফিলোসফি, যে ডিগ্রি পাওয়ার জন্য আসলেই  নিজেকে পাগল হতে হয়। এরকম অনেকের নাম বলতে পারব, যারা পিএইচ.ডি করতে এসে ডিগ্রি না করে পাগল হয়ে দেশে ফেরত করা, যা আগে কখনো করা হয়নি__-এটা পিএইচ.ডি ডিগ্রির জন্য অন্যতম শর্ত।  এই চাহিদা পুরণ না  | করতে পা        রলে সাধারণত ডিগ্রি  গেছে। নতুন কিছু উদ্ভাবন  অর্জন করা যায় না। এর        জন্য কি পরিমাণ মানসিক চাপ নিতে হয়, তা একম তারাই অনুভব করতে পারে! আমার এক বন্ধু কোম্পানিতে চাকরি করত। কোম্পানির কাজের প্রেসার খুব বেশি, তাই বিদেশে চলে এলো.

করতে | বিদেশে এসে উপলব্ধি করল-_এই প্রেসারের কাছে দেশের চাকরির  কাজের প্রেসার কিছুই না!    তোমার ইচ্ছে কি আমেরিকায় আসা? তা হলে তার জন্য মাস্টার্স করাই যখেষ্ট।        অধিকাংশ চাকরির জন্য মাস্টার্স ডিগ্রি হলেই চলে। বাংলাদেশের অনেকেই আছে, যারা আমেরিকায় এসে মাস্টার্স করে চাকরি করে গ্রিনকার্ড পেয়ে খুব সুখে আছে। অনেক চাকরিতেই পিএইচ.ভি থাকাটা জরুরি নয়। তবে, তুমি যদি     গবেষণায় আনন্দ পাও, শিক্ষক বা গবেষক হতে চাও, তবে পিএইচ.ডি  অপরিহার্য। কাজেই  লক্ষ্য যদি হয় একাডেমিক লাইনে থাকা, সেক্ষেত্রে     পিএইচ.ডি কর। আর যদি সত্যিই আমেরিকা যাবার ইচ্ছে থাকে, তবে 085/10দুলা-এ কীভাবে ভালো স্কোর করা যায়, পড়াশোনার পাশাপাশি সে  চেষ্টা চালিয়ে যাও।     মনে কর, তুমি আমেরিকা আসবে না, কানাডায় স্থায়ী হতে চাও! তা হলেও তার জন্য মাস্টার্স করাই যথেষ্ট। কানাডার আরেকটি সুবিধা আছে, 985/0 দা, লাগবে না, [লগা 79 দিলেই আসতে প্রারবে। কানাডায় মাস্টার্স করতে যাবার   জন্য সবচেয়ে সহজ উপায় হলো ভার্সিটির অধ্যাপককে রাজি করানো।

তুমি যদি  তাকে রাজি করাতে পারো, তা হলে কানাডায় যাবার ভিসা নিশ্চিত। একবার  কানাডা পৌছে গেলে,  চেষ্টাই বেশিরভাগ মানুষ করে, সেজন্য পিএইচ.ডি থাকাটা জরুরি নয়! মাস্টার্স করার সময় পার্টটাইম চাকরি করা গেলেও অনেক ক্ষেত্রে পিএইচ.ডি করার        মাস্টার্স করার পর পিএইচ.ডি না করে নাগরিকত্ব পাবার           সময় তার সুযোগ থাকে না। জাপানের একটি ঘটনা, বাংলাদেশি একটি ছেলের  চাকরিতে মনোযোগ বেশি ছিল। প্রফেসর ল্যাবে বেশি  কাজ করতে বলল, সে উত্তর দিল__আমি পড়তে আসিনি, টাকা কামাতে এসেছি! প্রফেসর তাকে ডিগ্রি না দিয়ে দেশে পাঠিয়ে দিল। আসলে, আমরা মনে করি বাইরে শুধু টাকা আর টাকা! আমাদের সুপ্ত বাসনা শুধু ডিগ্রি নয়, সাথে টাকা চাই। সেটা যদি পিএইচ.ডি করার সময় না আসে, তুমি করবে পিএইচ.ডি? পিএইচ.ডি করতে গেলে টাকা কামাতে পারবে না। আমি জানি, টাকা না থাকলেও আমার মতো অনেকেই পিএইচ.ডি অবশ্যই করবে.

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!