ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায় উপন্যাস Pdf Download (All)

সন্ধ্যারাগ ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায় pdf – sandhyarag Falguni Mukhopadhyay Pdf

সন্ধ্যারাগ ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায়ের বই pdf : link1 –  click here
আজ একটা সাধারণ বই এর কথা। ‘সাধারণ’ কথাটা খুব সচেতনভাবে এবং একটু ভয়ে ভয়ে বললাম। ‘ভয়ে ভয়ে’ কারণ কোনটা সাধারণ আর কোনটা অসাধারণ, তার বিচার কী ভাবে হবে এবং কেই বা করবেন?
‘সাধারণ’ এইজন্য যে বইটি এবং তার লেখককে নিয়ে কোন চর্চা কোন পত্রপত্রিকায় কোন দিন আমার নজরে পড়েনি। প্রাজ্ঞ পাঠক মহলেও বইটি নিয়ে কোন আলাপ আলোচনা, কখনও আমার কানে আসেনি।
এর একটা কারণ হতে পারে যে, সুধী সমালোচক এবং প্রাজ্ঞ পাঠককুল বইটির সাহিত্যমূল্যের ব্যাপারে তাঁদের দ্বিধাদ্বন্দ কাটিয়ে উঠতে পারেননি। যদিও যাঁদের বয়স এখন পঞ্চাশের উপরে, তাঁরা অনেকেই বইটির কাহিনি আংশিকভাবে জানেন এবং তাঁরাও বইটিকে চেনেন ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায়ের বই হিসেবে নয়, উত্তম-সুচিত্রার বই হিসেবে (মনে পড়ছে কি শাপমোচনের কথা আর সেই বিখ্যাত গান-ঝড় উঠেছে বাউল বাতাস..?)। তখন অনেককেই শুনেছি সিনেমাকে ‘বই’ বলতে।
আমার তখন উঠতি বয়স, সেই সময় কীভাবে যেন বইটি আমার হাতে এসে পড়েছিল। তখন সামাজিক অনুষ্ঠানে বই উপহার দেবার খুব চল ছিল। বই উপহারের মধ্যে যিনি উপহার দেন এবং যিনি উপহার গ্রহণ করেন, উভয়ের শিক্ষাদীক্ষা, মনন ও রুচির একটা ছাপ থাকত। এখনকার মত তাকে বেড কভার, ননস্টিকিং প্যান বা প্রেশার কুকারে টেনে নামানো হয়নি। বইটা হয়ত কেউ উপহার হিসেবে পেয়েছিল এবং অবশেষে আমার দখলে এসেছিল।
সকালে পড়া শুরু করে শেষ করেছিলাম সূর্য ডোবার ঠিক আগে। মাঝখানে তড়িঘড়ি স্নান ও খাওয়াদাওয়ার সময়টুকু বাদ দিয়ে একটানা। শাপমোচন দেখার পর দর্শক সিনেমাহল থেকে বেরিয়ে আসেন বুকের মধ্যে চাপা সুখ আর মুখে খুশি খুশি ভাব নিয়ে আর আমি বইটা শেষ করার পর বুম হয়ে বসে ছিলাম এবং অনেকক্ষণ পরে খেয়াল করেছিলাম, চোখ দিয়ে টপ টপ করে জল পড়ছে।
এই পর্যন্ত পড়ার পর কেউ কেউ হয়ত মনে মনে ভাবছেন, “বুঝেছি হে বুঝেছি, সেটা ছিল তোমার উঠতি বয়েস আর তুমি পড়ছিলে একটা প্রেমের উপন্যাস। তাতে মজে তুমি যে মজনু হয়ে যাবে, এ তো জানা কথাই। তা’ এত ঢাকঢোল পিটিয়ে ফলাও করে বলার কী আছে?”
যাঁরা ঠোঁট চেপে মুচকি হাসছেন আর এমনটা ভাবছেন, তাঁদের কাছে আমার সবিনয় নিবেদন:
লেখকের কাছে ‘প্রেম’ হল সহজপাচ্য বিষয়। লোকে খায় ভালো, হজমও হয় তাড়াতাড়ি। দীর্ঘ প্রায় পঞ্চাশ বছরের পাঠকজীবনে যত গল্প-উপন্যাস পড়েছি (শিশুসাহিত্য বাদ দিয়ে), তার বেশিরভাগই কোন না কোন ভাবে প্রেমের উপাখ্যান। তার আবার বেশিরভাগেরই গল্পের রেশ তো দূরের কথা, নামটুকুও আজ আর মনে নেই। প্রথম ছাপার বিশ-পঁচিশ বছরের মধ্যে তার অনেকগুলি কিংবা বেশিরভাগ ‘আউট অফ প্রিন্ট’ এর দলে নাম লিখিয়েছে। ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায়ের কাহিনি এত দীর্ঘ সময় ধরে যে আমাকে মজিয়ে রেখেছে, কী তার রস ও রসায়ন, এত বছর পরেও আমি ঠিক বুঝে উঠতে পারিনি।
কোন কোন সমালোচককে বলতে শুনেছি, ‘দেবদাস’ নাকি শরৎচন্দ্রের কাঁচা বয়সের কাঁচা হাতের লেখা। প্রশ্ন করি, ‘দেবদাস’ এর মত আর কটা বই এত দীর্ঘ সময় ধরে পাঠকের মন মজিয়ে রাখতে পেরেছে?
সন্ধ্যারাগ প্রথম ছাপা হবার ৬৬ বছর পরে এখনও কলেজ স্ট্রিটে বইটি কিনতে পাওয়া যায়। বুঝতে অসুবিধা হয় না, বইটি পাঠকের কৃপাধন্য হয়েছে। একজন লেখকের কাছে এর চেয়ে বড় প্রাপ্তি আর কী হতে পারে?

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!